বর্তমান সময়ঃ- 8 April, 2020

এন্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্য ৫ টি সেরা ভিডিও কলিং এপ

আসসালামু ওলাইকুম বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন আজকে আপনাদের মুড কে অন্য লেভেলে নেওয়ার জন্য ৫ টি ভিডিও কলিং এপ্স সেয়ার করতে যাচ্ছি। সেয়ার বললে ভুল হবে আসলে আমার পছন্দের এবং সবচেয়ে জনপ্রিয় কয়েকটি ভিডিও কলিং এপ এর নাম এবং কিছু ফিচারস আপনাদের মাঝে আমি সজিব আহমেদ তুলে ধরবো।

ভিডিও কলিং এখন নিত্যদিনের এক কাজ হয়ে দারিয়েছে, সবাই এখন।ভয়েস কল না করে ভিডিও কলিং ফিচার নিয়ে বেস্ত হয়ে পরেছে ত আজকে সেই ভিডিও কল প্রেমিকরা কিছু এপস দেখে নিন আসা করি ভালো লাগবে।

৫ টি সেরা ভিডিও কলিং এপ :

 

১) JusTalk:

সবার প্রথমে আমি এই এপ্সটিকে চুজ করি কারন এর ফিচার অন্যন্য এপস গুলা থেকে ভিন্ন ফিচার যুক্ত এবং এর এপস ডিজাইনটাও মন কাড়ানো। 

Jus talk- ৫ টি সেরা ভিডিও কলিং

সেয়ার ফটো, টকিং তোলা ছবি পাঠাতে পারবেন 

ভিডিও কলিং এর  সময় JusTalk তাদের মুখে ডুডল তৈরি ফাংশন ব্যবহারকারীদের প্রদান করে ফলে  ভিডিও কলে আরো মজাদার করে। JusTalk HD মানের সঙ্গে ভিডিও কল সময় ভিডিওর ট্রাফিকের 40% সংরক্ষণ করতে পারবেন.

JusTalk ভয়েস কল এবং ভিডিও কল উভয় এনক্রিপ্ট করে।  এর কিছু অসাধারন ফিচার এর কারনে ৫ টি ভিডিও কলিং এপ্স এর তালিকায় রেখেছি।

Playstore Link

২)WhatsApp:

হোয়াটসঅ্যাপ একটি জনপ্রিয় ম্যাসেঞ্জার। বর্তমানে বিশ্বে কোটি কোটি মানুষ ফেসবুকের এই সেবাটি ব্যাবহার করেন। সাধারণত মোবাইল থেকেই এই অ্যাপটি ব্যাবহার করা যায়। এটি অনেক জনপ্রিয় একটি মেসেঞ্জার এপ জার কারনে এই এপ্সটি কে।

Wechat

৫ টি ভিডিও কলিং এপ্স এর তালিকায় রাখা যায়

 

এ ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে ছবি আদান-প্রদান, ভিডিও ও অডিও মিডিয়া বার্তাও আদান-প্রদান করা যায়। ম্যাসেঞ্জারটি অ্যাপলের আইওএস, ব্ল্যাকবেরি, অ্যান্ড্রয়েড, সিমবিয়ান ও উইন্ডোজ ফোনে ব্যবহার করা যায়। ব্যবহারকারীর ফোনে থাকা ফোন নম্বর তালিকা থেকে হোয়াটসঅ্যাপ স্বয়ংক্রিয়ভাবে নম্বর সিংকক্রোনাইজ করে নেয়। ফলে আলাদা করে আইডি যোগ করার প্রয়োজন হয় না।

 

ফেব্রুয়ারি,২০১৩ সালে হোয়াটসঅ্যাপ ২০০ মিলিয়ন ব্যবহারকারী ছাড়িয়ে যায়। এপ্রিল ২২,২০১৪ তে, হোয়াটসঅ্যাপ দাবি করে তাদের ৪০০ মিলিয়ন সক্রিয় ব্যবহারকারী রয়েছে।জানুয়ারী ২০১৫ তে হোয়াটসঅ্যাপ ৭০০ মিলিয়ন ইউজার এর মাইলফলক স্পর্শ করে।এরপর ১৯ ফেব্রুয়ারি,২০১৫ সালে ফেসবুক প্রায় ১৫০ কোটি ডলারে হোয়াটসঅ্যাপ কিনে নেয়।

 

৩) Viber:

সেরা ভিডিও কলিং এপ

বর্তমান সময়ে জনপ্রিয় নাম ভাইবার ইতি মধ্যে আমারা যারা স্মার্ট ফোন ব্যবহার করছি তারা কম বেশি সবাই এই ভাইবার নামক অ্যাপটি নিজ নিজ মোবাইলে ডাউনলোড করে বন্ধুদের সঙ্গে ফ্রী কল , ম্যাসেজ , ভিডিও কল , গ্রুপ চ্যাট ইত্যাদি করছি কিন্তু ইতি মধ্যে ভাইবার আপনাকে দিছে পিসিতে ব্যবহার করার সুবিদা আপনি চাইলে আপনার মোবাইল এর সঙ্গে সঙ্গে আপনার পিসিতেও ব্যবহার করতে পারবেন এই জনপ্রিয় অ্যাপটি ।সেরা ভিডিও কলিং এপ

৪) Wechat

উইচ্যাটের টেক্সট মেসেজিং, হোল্ড-টু-টক ভয়েস মেসেজিং, ব্রডকাস্ট (এক সাথে বহুর) মেসেজিং, ভিডিও কনফারেন্সিং, ভিডিও গেম, ফটোগ্রাফ ও ভিডিও শেয়ারিং, এবং অবস্থান শেয়ারিং প্রদান করে।এটি ব্লুটুথের মাধ্যমে কাছের মানুষের সাথে যোগাযোগ বিনিময় করতে পারে,

 

৫) imo

ইমো একটি ম্যাসেন্জার, এটির মাধ্যমে ভিডিও এবং অডিও কল করার পাশাপাশি ম্যাসেজ, ছবি, ভিডিও, ফাইল শেয়ার করা যায়।

 

আজকের রিভিউটি কেমন হল?  আসা করি সবার ভালো লেগেছে বিদায় নিচ্ছি আগামি টিউন এর জন্য অপেক্ষা করুন এবং বাংলাপেন এর সাথেই থাকুন। 

 

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *